রাজ্যনিউজ

Rupankar Bagchi : বন্ধু রুপঙ্করেরে পাশে দাড়ালেন অনিন্দ্য চাটার্জী, কটাক্ষ থেকে রক্ষা করতে নিলেন পদক্ষেপ

রূপঙ্কর বাগচীকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় হওয়া কটাক্ষ থামাতে মুখ খুললেন অনিন্দ্য চ্যাটার্জী

রূপঙ্কর কিছু দিন আগেই তার সোসিয়াল মিডিয়া একাউন্ট থেকে একটি পোস্ট করেন ও বলেন “কে কেকে?” তার এই পোস্টের পর কেকে কলকাতা নজরুল মঞ্চে অনুষ্ঠান করার পরেই মৃত্যু বরণ করেন। এর পরেই সব রাগ, অভিমান ও ক্ষোভ উগরে দেন কেকের অনুরাগীরা রূপঙ্করের বিরুদ্ধে। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে এই ইন্ডাস্ট্রির বহু ব্যক্তি রূপঙ্কর তুলোধনা করেছেন। এই পরিস্থিতিতে তাঁর পাশে দাঁড়ালেন অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়। সঙ্গীত শিল্পী তথা পরিচালকের দাবি, “কোনও একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। বা তার মনের দুঃখে এ কথা বলেছেন রূপঙ্কর বাগচী (Rupankar Bagchi)।”

অনিন্দ্য রূপঙ্করের সাথে আছেন তাই তাকে এই উৎক্ষিপ্ত জনতা ও কেকে কে নিয়ে পোস্টের জন্যে হওয়া মনের কষ্ট থেকে রেহাই দিতে জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন রূপঙ্কর একটি ভালো মানুষ হয়তো কিসু মনের দুঃখের জন্যে, অভিমান থেকে কেকের কনসার্ট নিয়ে তেমন একটি পোস্ট করে ফেলেছিলেন।

Rupankar bagchi sitting

অনেকে বলছেন রূপঙ্কর অভিশাপ দিয়েছেন বলেই সেই জন্যে কেকে জি আজ আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কিন্তু অনিন্দ্য বললেন রূপঙ্কর কোনো অভিশাপ দেননি কেকে কে, বা তার অমঙ্গলের কামনাও করেন নি, হয়তো সেই অনুষ্ঠানে তাকে অনান্য বাঙালি শিল্পীদের অবহেলা করার জন্যে মনের দুঃখে সেই পোষ্টটি করেছিলেন। শিল্পী হিসেবে সকলকেই তিনি শ্রদ্ধা করি এবং সকলের করাও উচিৎ। সে যেই ভাষার এ হক না কেনো, আর ভুল বোঝা বোঝি হয়, মানুষের মাঝে তার জন্যে কেউ করো মৃত্যু কামনা করে না। বন্ধুর পাশে দাড়ালেন অনিন্দ্য চাটার্জী, রূপঙ্কর কে কটাক্ষ থেকে রক্ষা করতে পদক্ষেপ অনিন্দ্যর।

কিছু দিন আগেই রূপঙ্কর তার সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট থেকে একটি পোস্ট করেন ও বলেন “কে কেকে?” তার এই পোস্টের পর কেকে কলকাতা নজরুল মঞ্চে অনুষ্ঠান করার পরেই মৃত্যু বরণ করেন। এর পরেই সব রাগ, অভিমান ও ক্ষোভ উগরে দেন কেকের অনুরাগীরা রূপঙ্করের বিরুদ্ধে। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে এই ইন্ডাস্ট্রির বহু ব্যক্তি রূপঙ্কর তুলোধনা করেছেন। এই পরিস্থিতিতে তাঁর পাশে দাঁড়ালেন অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়। সঙ্গীত শিল্পী তথা পরিচালকের দাবি, “কোনও একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। বা তার মনের দুঃখে এ কথা বলেছেন রূপঙ্কর।”

অনিন্দ্য রূপঙ্করের সাথে আছেন তাই তাকে এই উৎক্ষিপ্ত জনতা ও কেকে কে নিয়ে পোস্টের জন্যে হওয়া মনের কষ্ট থেকে রেহাই দিতে জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন রূপঙ্কর একটি ভালো মানুষ হয়তো কিছু মনের দুঃখের জন্যে, অভিমান থেকে কেকের কনসার্ট নিয়ে তেমন একটি পোস্ট করে ফেলেছিলেন।

অনেকে বলছেন রূপঙ্কর অভিশাপ দিয়েছেন বলেই সেই জন্যে কেকে জি আজ আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কিন্তু অনিন্দ্য বললেন রূপঙ্কর কোনো অভিশাপ দেননি কেকে কে, বা তার অমঙ্গল কামনাও করেন নি, হয়তো সেই অনুষ্ঠানে তাকে অন্যান্য বাঙালি শিল্পীদের অবহেলা করার জন্যে মনের দুঃখে সেই পোষ্টটি করেছিলেন। শিল্পী হিসেবে সকলকেই তিনি শ্রদ্ধা করি এবং সকলের করাও উচিৎ। সে যেই ভাষার এ হক না কেনো, আর ভুল বোঝাবুঝি হয়, মানুষের মাঝে তার জন্যে কেউ করো মৃত্যু কামনা করে না। কিন্তু অনিন্দ্যর কথা যে তার মনে হয় রূপঙ্করের বক্তব্য ছিল যে, বম্বের শিল্পী এলে সবাই যতটা হইচই করে, কলকাতার শিল্পীদের সেই মর্যাদা-অর্থ-সম্মান দেওয়া হয় না। সেটার বিরুদ্ধে রূপঙ্কর বলতে চেয়েছিলেন। বলতে গিয়ে কেকের নামটা ব্যবহার করেছেন কারণ হয়তো তখন তাকে নিয়েই হইচই হচ্ছিল।

অনিন্দ্যর কথা হল “প্রতিটা শিল্পীই যে, যার ভাগ্য নিয়ে জন্মায়। কে, কতটা পাবে তা পূর্ব নির্ধারিত থাকে। শোকের মধ্যে ক্ষোভের জন্ম হওয়া অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু শোকটা একটু নিবৃতে করা উচিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় নয়।” কিন্তু সময় খারাপ হলে বিচক্ষণ মানুষেরও ভুল হয়ে যায়। তাই একদিনের জন্যে কেউকে ভুল বোঝা উচিৎ নয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button